সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১১ রবিউস সানি , ১৪৪১ | ০৯:৩৬ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :

বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে বৃহস্পতিবারের হরতালে বিএনপির সমর্থন      আগামী জাতীয় নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত গ্রহণের সময় এখনো আসেনি বলে মন্তব্য করেছেন নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম       ফার্মগেট এলাকায় শুরু হয়েছে মেট্রোরেলের কাজ       রাজশাহীর জঙ্গি আস্তানায় র‌্যাবের অভিযানে নিহত ৩      তোরাব আলী খালাস, কারাগারে পিন্টুর মৃত্যু      ফারমার্স ব্যাংকের চেয়ারম্যান পদ ছাড়লেন মখা আলমগীর      চাঁপাইনবাবগঞ্জে র‌্যাবের অভিযান, নিহত ২       চাঁপাইনবাবগঞ্জে চরে ‘জঙ্গি আস্তানায়’ বিস্ফোরণ      আগামীকাল স্থায়ী কমিটির বৈঠক ডেকেছেন খালেদা জিয়া       স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ৩য় ম্যাচে জিততে হলে বাংলাদেশকে করতে হবে ৩৭০     

X
শনিবার, ২৪ নভেম্বর ২০১৮ ০৩:৫৩ পূর্বাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

প্রবাসীকে অপহরণ

img

আপনার স্বামীকে অপহরণ করা হয়েছে। সে সুস্থ আছে, আমাদের কথা মতো দেড় লাখ টাকা দিলে তাকে ছেড়ে দেয়া হবে। পরে রফাদফা শেষে এক লাখ টাকা চারটি বিকাশ নাম্বারে পাঠানো হয়। সময় বেঁধে দেয়া হয় ভোর ৬টা পর্যন্ত। কিন্তু টাকা পাঠাতে সকাল ৮টা বেঁজে যায়। টাকা পাবার পর অপহরণকারীরা আধাঘণ্টার মধ্যে তাকে ছেড়ে দেয়া হবে জানিয়েছিল। কিন্তু এরপর তারা আর আমার স্বামীকে ছেড়ে দেয়নি। এমনকি বন্ধ করে দেয়া হয় যোগাযোগের সব নাম্বার।

কান্না জড়িত কণ্ঠে কথাগুলো বলছিলেন রাজধানীর আশকোনা এলাকা থেকে নিখোঁজ কোরিয়া প্রবাসী এনামুল হক মনির স্ত্রী নাজমিন সুলতানা নিপা।

গত ২১ নভেম্বর রাতে আশকোনা থেকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যাবার পথে এনামুল নিখোঁজ হন।

শুক্রবার (২৩ নভেম্বর) ঘটনার পর পরিবারের পক্ষ থেকে দক্ষিণখান থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে তার পরিবার। দুই দিনেও স্বামীর খোঁজ না পাওয়ায় দুশ্চিন্তায় অপহৃতের পরিবার। পুলিশ বলছে, তারা বিষয়টি নিয়ে মাঠে কাজ করছে।

অপহৃতের বড় ভাই কামরুজ্জামান মাসুদ বলেন, ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়াশোনা শেষে এনামুল পিএচইডি করতে কোরিয়া যায়। কিছু দিন আগে দেশে বেড়াতে এসেছিল। ঘটনার দিন পাবনা থেকে স্ত্রীকে নিয়ে জামালপুর শশুড়বাড়ি যায়। ওই দিনই ঢাকায় এসে আশকোনা এলাকায় বন্ধুর ছোট ভাইয়ের বাসায় ওঠে। রাত দশটার দিকে সেখান থেকে বেরিয়ে যায় বিমানবন্দরের উদ্দেশ্যে। ওর (এনামুল) বন্ধুর ভাই রিকশায় তুলে দেয়। বুধবার দিবাগত রাত ১টায় ক্যাথে প্যাসেফিক এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে কোরিয়া যাবার কথা ছিল। এরপর থেকে আর কোন খোঁজ মেলেনি।

তিনি আরও বলেন, বিমানবন্দরে ওই দিনের সিসিটিভি ফুটেজ দেখা হয়েছে এবং যে বিমানে যাবার কথা ছিল তাদের সাথে কথা হয়েছে। কোথাও ওর হদিস মেলেনি। হয়ত আশকোনা এলাকা থেকে সে নিখোঁজ হয়েছে। এই ব্যাপারে দক্ষিণখান থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। ঘটনার পর বৃদ্ধ বাবা-মাকে কিছু জানানো হয়নি। তারা এনামুলের সাথে যোগাযোগ না করতে পারায় খুব ভেঙে পড়েছে।

এনামুল হকের স্ত্রী নাজমিন সুলতানা নিপা বলেন, কোরিয়ায় তার পিএইচডি সম্প্রতি শেষ হয়েছে। সামনে সমাবর্তন ছিল। তাদের দুই বছরের একটি ছেলে সন্তান আছে। দ্রুত তার স্বামীকে সে ফিরে পেতে চায়।

রাজধানীর দক্ষিণখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তপন চন্দ্র সাহা বলেন, এ ব্যাপারে থানায় একটা ডায়েরি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে উদ্ধর্তন কর্মকর্তারা অবগত আছে। পুলিশ প্রযুক্তি ব্যবহার করে মাঠে কাছ করছে।

আরো খবর