মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১২ রবিউস সানি , ১৪৪১ | ০৫:৩৫ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :

বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে বৃহস্পতিবারের হরতালে বিএনপির সমর্থন      আগামী জাতীয় নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত গ্রহণের সময় এখনো আসেনি বলে মন্তব্য করেছেন নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম       ফার্মগেট এলাকায় শুরু হয়েছে মেট্রোরেলের কাজ       রাজশাহীর জঙ্গি আস্তানায় র‌্যাবের অভিযানে নিহত ৩      তোরাব আলী খালাস, কারাগারে পিন্টুর মৃত্যু      ফারমার্স ব্যাংকের চেয়ারম্যান পদ ছাড়লেন মখা আলমগীর      চাঁপাইনবাবগঞ্জে র‌্যাবের অভিযান, নিহত ২       চাঁপাইনবাবগঞ্জে চরে ‘জঙ্গি আস্তানায়’ বিস্ফোরণ      আগামীকাল স্থায়ী কমিটির বৈঠক ডেকেছেন খালেদা জিয়া       স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ৩য় ম্যাচে জিততে হলে বাংলাদেশকে করতে হবে ৩৭০     

X
বৃহস্পতিবার, ০৮ নভেম্বর ২০১৮ ১১:৩৩ পূর্বাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

‘ সরকার খালেদাকে বিনা চিকিৎসায় মারতে চাচ্ছে ’

img

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন বলেছেন, ‘আদালতের নির্দেশে চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল, কিন্ত কোনো নোটিশ ছাড়াই তাকে বৃহস্পতিবার আবার কারাগারে নেয়া হয়েছে। সরকার খালেদা জিয়াকে বিনা চিকিৎসায় মেরে ফেলতে চাচ্ছে।’

বৃহস্পতিবার দুপুরে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির শহীদ শফিউর রহমান মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি, বিচার বিভাগের স্বাধীনতা, গণতন্ত্র ও আইনের শাসনের দাবিতে আগামী ১৭ নভেম্বর আইনজীবীদের মহাসমাবেশ ঘোষণা করা হয়।

চিকিৎসার জন্য হাইকোর্টের নির্দেশনা থাকার পরও খালেদা জিয়াকে হাসপাতাল থেকে পুনরায় কারাগারে ফিরিয়ে নেয়ায় আদালত অবমাননা হয়েছে বলেও দাবি করেন জয়নুল আবেদীন।

তিনি বলেন, ‘হাইকোর্টের নির্দেশে খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার সঙ্গে আজ পর্যন্ত কোনো আইনজীবীকে দেখা করতে দেয়া হয়নি। তার আত্মীয়-স্বজনরাও নিয়মিত দেখা করতে পারেননি।’

খালেদা জিয়ার আইনজীবী প্যানেলের অন্যতম সদস্য জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘গত ৬ নভেম্বর খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার জন্য আমরা আবেদন করেছিলাম কিন্তু আজ পর্যন্ত সে আবেদন তারা গ্রহণ করেনি। আজ সকালে খবর পেলাম, মাত্র আধা ঘণ্টার নোটিশে আদালতকে কিছুই না জানিয়ে তাকে ব্যাগ অ্যান্ড ব্যাগেজ কারাগারে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। আমরা তার আইনজীবী। আমাদের বিষয়টি জানানো উচিত ছিল।’

তিনি জানান, মূলত আদালতের নির্দেশের পর তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। তাই কর্তৃপক্ষ বিষয়টি আদালতকেও অবহিত করেনি। সে রকম কোনো নোটিশ দেয়া হয়নি। এটা দুঃখজনক। এতে বিচার বিভাগের আদেশ অবজ্ঞা করা হয়েছে। সরকার এ আদেশ অবজ্ঞা করে খালেদা জিয়াকে কারাগারে পাঠিয়েছে।

সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে জয়নুল আরও বলেন, ‘বিনা চিকিৎসায় সরকার খালেদা জিয়াকে মেরে ফেলতে চাইছে। এতে আমাদের আইনজীবীদের এবং দেশের সাধারণ মানুষের মনে উৎকণ্ঠার সৃষ্টি হয়েছে। এ অবস্থায় জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কিনা বা আদৌ নির্বাচন হবে কিনা- তা নিয়ে শঙ্কা রয়েছে।’

আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকনের সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সমিতির সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট গোলাম মোস্তাফা, ট্রেজারার নাসরিন আখতার, সহ-সম্পাদক কাজী জয়নাল আবেদীন, অ্যাডভোকেট আহসান উল্লাহ, মাহফুজ বিন ইউসুফ, ব্যারিস্টার শফিউল মাহমুদ, ব্যারিস্টার এ কে এম এহসানুর রহমান, ব্যারিস্টার মেহেদী হাসান, সালাউদ্দিন, মো. টিপু সুলতান, আনিসুর রহমান রায়হানসহ বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা।

আরো খবর